আন্তর্জাতিক

ইন্দোনেশিয়ায় বন্যা-ভূমিধসে ৩৭ জনের মৃত্যু, নিখোঁজ ১৭

  প্রতিনিধি ১৩ মে ২০২৪ , ৬:৫৩:৫৯

Spread the love

ইন্দোনেশিয়ার সুমাত্রা দ্বীপে ভারী বৃষ্টিপাতের ফলে সৃষ্ট বন্যা ও আগ্নেয়গিরির ঠান্ডা লাভার প্রবাহে প্রাণ হারিয়েছেন অন্তত ৩৭ জন। এতে আহত হয়েছেন এক ডজনেরও বেশি স্থানীয় বাসন্দিা। এছাড়া বেশ কয়েকজন নিখোঁজ রয়েছেন বলেও স্থানীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে। এ খবর দিয়েছে অনলাইন সিএনএন।

খবরে বলা হয়েছে, আকস্মিক বন্যার পানির সাথে আগ্নেয়গিরি থেকে সৃষ্ট ঠাণ্ডা লাভা প্রবাহের ফলে ওই হতাহতের ঘটনা ঘটেছে। এতে দেশটির পশ্চিমাঞ্চলে ভয়াবহ বিপর্যয়ের দেখা দিয়েছে। এছাড়া শতাধিক ঘরবাড়ি, মসজিদসহ বিভিন্ন স্থাপনা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে বলে জানিয়েছে উদ্ধারকর্মীরা।

ইন্দোনেশিয়ার জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা সংস্থার প্রকাশিত কিছু ছবিতে দেখা যায়, বন্যার ফলে গাড়ো কাদা এবং আগ্নেয়গিরির ছাই মিশ্রিত লাহারে ঢেকে গেছে সেখানকার রাস্তা ঘাট এবং পাহাড়ের আশপাশের কয়েকটি গ্রাম। লাভা ও বন্যার পানির স্রোতে প্লাবিত হয়ে ৮৪টি বসতবাড়ি এবং ১৬টি সেতু মারাত্মভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনার আঞ্চলিক প্রধান আব্দুল মুহারি জানিয়েছেন, নিহত ৩৭ জনের ৩৫ জনকে শনাক্ত করেছে কর্তৃপক্ষ। নিহতদের বেশির ভাগ আগাম রেজিন্সি নামক স্থান থেকে উদ্ধার করা হয়েছে যেখানে আনুমানিক পাঁচ লাখ মানুষের বসবাস।

২ হাজার ৮৯১ মিটার উঁচু ইন্দোনেশিয়ার মারাপি আগ্নেয়গিরি দেশটির সক্রিয় আগ্নেয়গিরির একটি। বিশ্বের ভয়াবহ আগ্নেয়গিরির একটি ধরা হয় সুমাত্রা দ্বীপের এই আগ্নেয়গিরিগুলোকে।

উল্লেখ্য, ঠাণ্ডা লাভাকে লাহার বলা হয়। আগ্নেয়গিরির লাভায় যেসব ছাই, বালি ও নুড়ি মিশ্রিত হয়ে বৃষ্টির পানিতে গলে লাহারে পরিণত হয়।

আরও খবর

Sponsered content