রাজনীতি

রাষ্ট্রের সব প্রতিষ্ঠান ধ্বংস করে ফেলেছে

  প্রতিনিধি ৫ এপ্রিল ২০২৪ , ৯:৩৮:৫৪

Spread the love

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, বাংলাদেশকে রাষ্ট্র বলে মনে হয় না। মনে হয় না, এটা একটা স্বাধীন রাষ্ট্র। আমাদের মনে হয়, পুরোপুরিভাবে একটি আধিপত্যবাদ সরকার আমাদের ওপর চেপে বসেছে।

ফখরুল আজ শুক্রবার (৫ এপ্রিল) জাতীয় প্রেসক্লাবে এক ইফতার মাহফিলে এসব কথা বলেন। বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন ও ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের একাংশ এ ইফতার মাহফিলের আয়োজন করে।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আজকে একটা ভয়াবহ পরিস্থিতির সম্মুখীন হয়েছি আমরা। শুধু বিরোধী দল নয়, পেশাজীবী নয়, পুরো জাতি একটা ভয়াবহ পরিস্থিতি সম্মুখীন হয়েছে। ১৮ থেকে ২০ বছর ধরে আমরা গণতন্ত্রকে হারিয়ে ফেলেছি। সেই সঙ্গে রাষ্ট্রের সব প্রতিষ্ঠান ধ্বংস করে ফেলেছে সরকার।’

বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘আমরা যাদের বিশ্বাস করি, যাদের ওপর আস্থা রাখি-গণমাধ্যম। সেই গণমাধ্যমের ওপর প্রথম আঘাত করেছে সরকার। অনেক টেলিভিশন-পত্রিকা বন্ধ করে দিয়েছে সরকার। যারা লিখতে চান, মতপ্রকাশ করতে চান, তাদের জন্য ডিজিটাল সিকিউরিটি আইন করেছে সরকার। তাদের তুলে নিয়ে গিয়ে নির্যাতন করেও মারা হয়। এই সরকারের হাত থেকে গণমাধ্যমও রেহায় পায়নি, পায় না। ফ্যাসিবাদ শক্তি যখন আক্রমণ করে তখন কেউ রেহায় পায় না।’

বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘অনেকে ভাবছেন বিএনপির আন্দোলন নস্যাৎ হয়ে গেছে। বিরোধী দলের আন্দোলন নস্যাৎ হয়ে গেছে, কিন্তু কখনোই না। প্রতিটি আন্দোলনের পরে আরও শক্তিশালী হয়েছে এই শক্তিগুলো। আমরা বিশ্বাস করি, আন্দোলন, আন্দোলন, আন্দোলন। এই আন্দোলনের মাধ্যমেই ফ্যাসিবাদী সরকারের পরাজয় নিয়ে আসবে এমন মন্তব্য করে।’ তিনি বলেন, আমাদের ব্যাংকসহ সব কিছু ধ্বংস করে দিয়েছে। বিচার ব্যবস্থা, নির্বাচনি ব্যবস্থা সবকিছু তারা ধ্বংস করে দিয়েছে।

ইফতার মাহফিলে বিএফইউজের সভাপতি রুহুল আমিন গজীর সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল মিয়া গোলাম পরওয়ার, সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল রফিকুল ইসলাম খান, মাওলানা আব্দুল হালিম, কেন্দ্রীয় প্রচার-মিডিয়া সেক্রেটারি অ্যাডভোকেট মতিউর রহমান আকন্দ, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েস্বর চন্দ্র রায়, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আবদুস সালাম, কবি আব্দুল হাই শিকদার, মিডিয়া সেলের আহ্বায়ক জহির উদ্দিন স্বপন, বিএফইউজের মহাসচিব কাদের গনি চৌধুরী, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) সভাপতি মো. শহিদুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক খুরশীদ আলম, ডিইউজের সহসভাপতি রফিক মোহাম্মদ ও রাশেদুল হক, বিএফইউজের সহকারী মহাসচিব বাশির জামাল, ডিইউজের সাংগঠনিক সম্পাদক সাঈদ খান প্রমুখ।

আরও খবর

Sponsered content