খেলাধূলা

নেশন্স লিগ চ্যাম্পিয়ন স্পেন

  প্রতিনিধি ১৯ জুন ২০২৩ , ২:৩০:১৩

Spread the love

ক্রোয়েশিয়াকে কাঁদিয়ে স্পেনের শিরোপা উল্লাস
আরও একবার ফাইনালে স্বপ্নভঙ্গ হলো ক্রোয়েশিয়ার। ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপের ফাইনালে হৃদয় ভাঙার পর আরও একবার শিরোপার খুব কাছে গিয়েও উঁচিয়ে ধরা হলোনা ট্রফি। কাতার বিশ্বকাপের সেমি-ফাইনালিস্টরা বছর না ঘুরতেই আশাহত হল স্পেনের কাছে। ক্রোয়াটদের হারিয়ে ইউয়েফা নেশনস লিগের চ্যাম্পিয়ন হয়েছে স্পেন। এতে করে কাটলো তাদের দীর্ঘদিনের শিরোপাক্ষরা।

২০২২-২৩ মৌসুমের ক্লাব ফুটবল শেষে শুরু হয়েছে ফিফা উইন্ডো। তাই জাতীয় দলগুলো এখন আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলায় ব্যস্ত। সেই অংশ হিসেবে শুরু হয়েছিল উয়েফা নেশনস লিগের খেলা। এ টুর্নামেন্টের ফাইনালে শিরোপার লড়াইয়ে রবিবার রাতে মুখোমুখি হয় গত আসরের রানার্সআপ স্পেন ও শক্তিশালী ক্রোয়েশিয়া।

নেদারল্যান্ডস এর রটারডামে দে কুইপ স্টেডিয়ামে কাল ম্যাচের নির্ধারিত ৯০ মিনিটে গোলের দেখা পায়নি কোনো দলই। ফলে ম্যাচ গড়ায় অতিরিক্ত সময়ে। সেখানেও ৩০ মিনিট আপ্রাণ চেষ্টায় লক্ষ্যভেদ করতে ব্যর্থ হয় দুই দলই। নিয়মমতো তাই ম্যাচ গড়ায় টাইব্রেকারে। আর এই পেনাল্টি শ্যুটআউটেই ক্রোয়েশিয়ার হৃদয় ভেঙে নিজদের দীর্ঘ ১১ বছরের শিরোপার আক্ষেপ ঘুচিয়েছে স্পেন।

১২০ মিনিট খেলার পর ম্যাচ টাইব্রেকারে গড়ালে প্রথম তিন শটেই গলের দেখা পায় উভয় দল। কিন্তু ক্রোয়েশিয়ার প্রথম ধাক্কা আসে চতুর্থ শটে। মায়ারের নেয়া শত অসাধারণ ক্ষিপ্রতায় ফিরিয়ে দেন স্পেনের গোল রক্ষক উনাই সিমন। এরপরের শটে সফলতা পেলেও পঞ্চমবার বাধাপ্রাপ্ত হয় স্পেনও।আয়মেরিক লাপোর্তার নেয়া শট গোলপোস্টে লেগে বাইরে বেরিয়ে যায়।

পাঁচটি শটে শিরোপা জয়ী নির্ধারিত না হওয়ায় ষষ্ঠ শট নিতে হয় দুই দলকেই। আর এখানেই ব্যর্থ হয় ক্রোয়েশিয়া। পেতকোভিচের নেয়া শট ফিরিয়ে দেন সিমন। আর স্পেনের হয়ে দানি কার্ভাহাল সফল হলে শিরোপা উল্লাসে ফেটে পড়ে স্পেন।

টাইব্রেকারে ৫-৪ গোলে কড়োয়াটদের হারিয়ে ২০১২ এরপর এই প্রথম আন্তর্জাতিক শিরোপা জিতল স্পেন। ২০১০ ফুটবল বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়ন হবার পর স্প্যানিশ রা সবশেষ ইউরো শিরোপা ঘরে তুলেছিল। এদিকে রাশিয়া বিশ্বকাপে ফাইনালের পর আরও একবার ফাইনালে হারের সাক্ষী হতে হল ৩৭ বছর বয়সী লুকা মদ্রিচকে। ক্লাব ফুটবলে রিয়াল মাদ্রিদের হয়ে সম্ভাব্য সব শিরোপা ঘরে তোলা মদ্রিচ পারলেন না দেশের হয়ে অর্জনের সাক্ষী হতে।

এদিকে ম্যাচের নির্ধারিত সময়ে দুই দলই লড়াই করেছে গোলের খোঁজে। স্পেনের আক্রমণের জবাব ক্রোয়াটরা দিয়েছে পাল্টা আক্রমণে। পুরো ম্যাচে ক্রোয়েশিয়া ১২ টি শট নিয়ে লক্ষ্যে রাখতে পেরেছিল ৫ টি। অন্যদিকে স্প্যানিশরা গোল করার লক্ষ্যে ২১ টি শট নিলেও অন টার্গেট ছিল মাত্র দুইটি। নির্ধারিত নব্বই মিনিটের পর অতিরিক্ত ত্রিশ মিনিটেও কোনো দলই গোল করতে না পারায় ম্যাচ গড়ায় টাইব্রেকারে।

 

আরও খবর

Sponsered content