রাজনীতি

আওয়ামী লীগ দেশকে ধ্বংস করে দিচ্ছে-মির্জা ফখরুল

  প্রতিনিধি ১৬ জুন ২০২৩ , ১:৫৫:২৯

Spread the love

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকার সুচিন্তিতভাবে বাংলাদেশকে ধ্বংস করে দিচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বিএনপির শীর্ষ এই নেতা বলেছেন, উন্নয়ন বলতে শুধু উড়াল সেতু বোঝায় না। উন্নয়নের কথা বলে বিদেশ থেকে হাজার হাজার কোটি টাকা নিয়ে এসে আমাদের পকেট কাটা হয়। এই সরকার শুধু ভোট চোর নয়, এই সরকার সবকিছুর চোর।

শুক্রবার (১৬ জুন) বিকেলে সিরাজগঞ্জ সরকারি ইসলামিয়া কলেজ মাঠে আয়োজিত এক সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু ও ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির আহ্বায়ক আমান উল্লাহ আমানের বিরুদ্ধে মামলার রায়ের প্রতিবাদে ওই সমাবেশের আয়োজন করে সিরাজগঞ্জ জেলা বিএনপি।

সমাবেশে মির্জা ফখরুল বলেন, এই সরকার ভয় দেখিয়ে, গুম করে, জোর করে, বন্দকের জোরে ক্ষমতায় টিকে আছে। মানুষের ভোটে না। এখন সময় এসেছে আওয়ামী সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে, অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে। আমরা এই বয়সেও অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াচ্ছি, আপনাদেরও দাঁড়াতে হবে।

বিএনপির শীর্ষ এই নেতা বলেন, আমাদের ৬০০ নেতাকর্মীকে গুম করা হয়েছে। সিরাজগঞ্জের ২৭ জন নেতাকে হত্যা করা হয়েছে। আমাদের নেতাকর্মীদের মিথ্যা মামলা দিয়ে বারবার জেলে দেওয়া হয়। তারা (আওয়ামী লীগ) ইচ্ছেমতো বিদ্যুতের দাম বাড়িয়ে দেয়, তারা উন্নয়নের কথা বলেন। কিন্তু বড় বড় মানুষ বিদেশে গিয়ে চিকিৎসা করায়, অথচ দেশের মানুষের ভালো চিকিৎসা পাওয়ার যায়গা নাই।

ফখরুল বলেন, আপনারা পুলিশকে ব্যবহার করে সমাবেশে বাধা দেন। কিন্তু আমি পুলিশকে আজকের প্রোগ্রামের জন্য ধন্যবাদ দেই, পুলিশ আজকের মতো আগামীতেও প্রোগ্রাম সফল করতে সহযোগিতা করবেন।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, তারা দেশকে নিজের সম্পদ মনে করেন। কিন্তু এই দেশ শুধু আওয়ামী লীগের নয়, এই দেশ কৃষকের, সাধারণ নাগরিকের, পুলিশের- এই দেশ সবার।

আওয়ামী লীগের সমালোচনা করে তিনি বলেন, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু ও আমান উল্লাহ আমানের বিরুদ্ধে রায় অন্যায়ভাবে দেওয়া হয়েছে। এই সরকার অবৈধভাবে বুকের উপর চেপে বসে আছে। এই সরকার নিশিরাতের সরকার। আওয়ামী লীগ ভোট চোর।যুক্তরাষ্ট্রের ভিসানীতির প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, ভিসানীতিতে এখন পরিষ্কার যে- এই দেশে যারা সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনে বাধা দেবে, তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কথাটা তাদের খুব লেগেছে।

বিএনপির শীর্ষ এই নেতা বলেন, আমাদের কথা পরিষ্কার- এই সরকারকে পদত্যাগ করতে হবে। নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের তত্ত্বাবধানে নিরপেক্ষ নির্বাচন দিতে হবে। আমাদের নেত্রীকে মুক্তি দিতে হবে, সব মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করতে হবে। এটা আমাদের জীবন-মরণের প্রশ্ন, বাংলাদেশের সম্মানের প্রশ্ন। আমরা প্রতিহিংসা-সহিংসতাতে বিশ্বাস করি না।

সমাবেশে সিরাজগঞ্জের নেতাকর্মীদের ব্যাপক উপস্থিতির বিষয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, আজ সিরাজগঞ্জে আপনারা নতুন দিশা দেখিয়েছেন। সিরাজগঞ্জের মানুষ সবসময় বীর যোদ্ধা। আজ সিরাজগঞ্জের মানুষ জেগে উঠেছে।

বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সিরাজগঞ্জ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান বাচ্চুর সঞ্চালনায় এবং জেলা বিএনপির সভাপতি রোমানা মাহমুদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ওই সমাবেশে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিএনপির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা। এ

ছাড়াও প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক (রাজশাহী বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত) অ্যাডভোকেট রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু এবং বিশেষ বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির সহ-প্রচার সম্পাদক আমিরুল ইসলাম খান আলিম।

সমাবেশ জেলা বিএনপি ছাড়াও অন্যান্য সহযোগী সংগঠন ও সব উপজেলা বিএনপি এবং সহযোগী সংগঠনের হাজার হাজার নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

 

আরও খবর

Sponsered content